মিশরের পিরামিড

Egyptian pyramids at Giza

মিশরের পিরামিড (Egyptian pyramids) পৃথিবীর সপ্তম অাশ্চর্যের একটি। প্রাচীন মিশর শাসন করত ফারাওরা। তাদের কবরের উপর নির্মিত সমাধিসমুহ পিরামিড নামে পরিচিত। মিশরে ছোট-বড় মিলিয়ে মোট ৭৫টি পিরামিড রয়েছে। সবচয়ে বড় ও আকর্ষণীয়টি হচ্ছে গিজার পিরামিড, যা খুকু রাজার সমাধিসৌধ। এটি তৈরী হয়েছে খৃস্টপূর্ব ৫০০০ বছর আগে। সেই যুগকে বলে ব্রোঞ্চ যুগ। সমাধিসৌধটির উচ্চতা প্রায় ৪৮১ ফুট। এটি ৭৫৫ বর্গফুট জমির উপর অবস্থিত। এটি তৈরি করতে ১ লাখ শ্রমিকের ২০ হাজার বছর লেগেছিল। এটি ৩০-৪০ ফুট লম্বা ও ৬০ টন ওজনের বড় বড় পাথর দিয়ে তৈরি। দুটি পাথরের মধ্যে এক চুলও ফাঁক নেই।

সেই সময় মিশরবাসিরা মনে করত, মৃত্যুর পর মানুষের আত্মা বেঁচে থাকে। তাই তারা পিরামিডের মত সমাধিসৌধ বানিয়ে মৃতদেহ মমি করে রেখে দিত। মমি এক ধরনের প্রক্রিয়া, যার সাহায্যে মৃতদেহে ওষুধ দিয়ে সংরক্ষণ করা হতো, ফলে মৃতদেহ নষ্ট হতো না । তারা সেই পিরামিডের ভেতর মমির সাথে খাবার-দাবার ও শখ-আহ্লাদের জিনিস-পত্র রেখে দিত। এই পিরামিডগুলো বেশিরভাগই কায়রো শহরে অবস্থিত। এই শহরের প্রধান গর্ব নীলনদ। তাই কায়রো শহর পৃথিবীর অন্যতম পর্যটন নগরী। মিশর দেশটিকে ইংরেজিতে বলে ঈজিপ্ট (Egypt)।

তবে মিশরের পিরামিড ছাড়াও  পৃথিবীর অন্যান্য দেশেও পিরামিড আকৃতির  বিভিন্ন সৌধ রয়েছে। যেমন, Prasat Thom Temple, Kohker Cambodia, Candi candi Sukuh (Java Indonesia), Pyramid of Guimar (Spain)। মেসোপটেমিয়ায় পৃথিবীর সবচয়ে প্রাচীন পিরামিড দেখা যায়। তার নাম জিগারাটস্ (ড়iggurasts)। এছাড়াও, সুদানের Nubian Pyramid, নাইজেরিয়ার Nusude Pyramid, গ্রীসরে Hellinikon Pyramid, ভারতের থাঞ্জাভুর মন্দির পিরামিড আকৃতির সৌধ। মিশরের চেয়েও বেশি পিরামিড রয়েছে সুদানে।

পৃথিবী বিখ্যাত কতগুলো আধুনিক পিরামিড স্থাপত্য হল:- ক্যালিফোর্নিয়ার লং বিচের – ওয়াল্টার পিরামিড, নেভেদার লাস ভেগাসের লাক্সার হোটেল, ফ্রান্সের প্যারতসের Louvre পিরামিড।

লিখেছেন:Uttam Saha

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *